1. admin@prothomctg.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৪৪ অপরাহ্ন

টাকায় অস্থায়ী স্বাস্থ্য সহকারীরা-স্বাস্থ্য পরিদর্শক, স্টাফ নার্স পদে পিয়ন-আয়া-ক্লিনার’

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
  • ৬৩ বার পঠিত

আবু তাহের, সুমন মিত্র, তাপস দে, আবু জাফর, শেখ শহিদুল আলম ও এরশাদুল ইসলাম ওরা ছয়জন। “অস্থায়ী স্বাস্থ্য সহকারী” পদে চাকরি করছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগে। গত কিছুদিনপূর্বে ‘স্বাস্থ্য সহকারী’ পদে গ্রেডেশন তালিকা প্রস্তুত পূর্বক তাদের স্বাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে চাকরি স্থায়ী করণের জন্য।

তবে অভিযোগ উঠেছে, সরকারের নিয়োগবিধি উপেক্ষা করে ওই ছয় অস্থায়ী স্বাস্থ্য সহকারীকে গোপনে পদোন্নতি দিয়ে ‘স্বাস্থ্য পরিদর্শক’ পদে চাকরি স্থায়ী করণের তোরজোড় চলছে। এই জন্য প্রতিজনের কাছ থেকে তিন লক্ষ টাকা করে চাওয়া হয়েছে প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট নিয়োগ কর্তাদের ম্যানেজ করার জন্য। চসিকের স্বাস্থ্য বিভাগের দুজন কর্মকর্তা-কর্মচারি এসব টাকা তুলছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

যদিও অস্থায়ী ছয় স্বাস্থ্য সহকারীর কেউই এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

চসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডা. ইমাম হোসেন রানা বলেন, চসিকের স্বাস্থ্য বিভাগে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলিয়ে ১২’শর উপরে কর্মকর্তা-কর্মচারি রয়েছেন। দীর্ঘদিন পর মন্ত্রণালয়ের চিঠির আলোকে চসিক কর্তৃপক্ষ গত বছর অস্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারিদেরকে স্থায়ী করণ প্রক্রিয়া শুরু করেছে। ইতিমধ্যে গ্রেডেশন তালিকা প্রস্তুত করে অনেকেরই শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা সনদসহ সকল দলিলপত্র যাচাই-বাছাই শেষ হয়েছে। আরও কিছু বাকি আছে। নিয়োগ বিধির আলোকে চসিক বোর্ড যদি দেখে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারির নিয়োগের সকল শর্ত সঠিক, তাহলেই তাকে চাকরিতে যোগদানকালিন স্বীয়পদে স্থায়ী করার জন্য বিবেচনা করা হবে। অন্যথায় একপদে নিয়োগ দিয়ে অন্যপদে স্থায়ী করার কোনো সুযোগ নেই।

তবে চসিকের স্বাস্থ্য বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা বললেন ভিন্ন কথা। তারা জানান, অস্থায়ী স্বাস্থ্য সহকারীদেরকেই যে নিয়োগ বিধি লঙ্গন করে ‘স্বাস্থ্য পরিদর্শক’ পদে চাকরি স্থায়ী করে দেওয়া হচ্ছে শুধু তা নয়! চসিকের স্বাস্থ্য বিভাগের ‘আয়া, ক্লিনার, ওয়ার্ড বয়, পিয়নকে’ স্বাস্থ্য সহকারী পদে চাকরি স্থায়ী করার প্রক্রিয়া চলছে। যদিও সরকারি নিয়োগ বিধি অনুযায়ি এই পদের জন্য এইচ.এস.সি বিজ্ঞান বিভাগে বায়োলজিক্যালসহ উত্তীর্ণ হওয়া বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

নার্স পদে চাকরি স্থায়ী করার জন্য গ্রেডেশন তালিকা প্রস্তুতপূর্বক স্বাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে ‘ঝাড়ুদার, এইট নার্স, আয়া, ক্লিনার ও শ্রমিকদের’। নিয়োগ বিধিতে রয়েছে “নার্সিং বিষয়ে তিন বছরের ডিপ্লোমা কোর্স বা নার্সিংয়ে বিএসসি উত্তীর্ণ হতে হবে উল্লেখ রয়েছে।

অফিস সহকারী পদে স্থায়ী করা হচ্ছে অস্থায়ী দারোয়ান, পিয়ন ও ক্লিনারদেরকে। এই পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে এইচএসসি পাস সহ কম্পিউটার বিষয়ে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন হওয়ার বাধ্যকতা রয়েছে।

র্ফামাসিস্ট পদে চাকরি স্থায়ী করার জন্য গ্রেডেশন তালিকা প্রস্তুতপূর্বক স্বাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে ৪১জনের। তাদের মধ্যে চারজন ব্যতীত আর কারোই নিয়োগ বিধির আলোকে ৪ বছরের ডিপ্লোমা ইন-র্ফামেসি বা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) সনদ রয়েছে এমন কোনো তথ্য মিলেনি।

চসিক সচিবের দপ্তর সূত্রে জানাগেছে, সম্প্রতি চট্টগ্রাম সিটিকর্পোরেশন অস্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মধ্য থেকে যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা সম্পন্নদের নিয়োগকালিন স্ব-স্ব পদে চাকরি স্থায়ী করণ প্রক্রিয়া শুরু করেছে। এই জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারিদের তথ্য চেয়ে নিয়ে গ্রেডেশন তালিকা প্রস্তুত পূর্বক একাডেমিক ও অন্যান্য সনদ যাচাইয়ের পাশাপাশি মৌখিক স্বাক্ষাৎকার নেওয়া শুরু করেছে। ইতিমধ্যে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির বিভিন্ন পদের অন্তত কয়েকশ অস্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারির স্বাক্ষাৎকার গ্রহণ শেষ করেছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, অন্যান্যদের ন্যায় গ্রেডেশন তালিকায় থাকা অস্থায়ী স্বাস্থ্য সহকারী আবু তাহের, সুমন মিত্র, তাপস দে, আবু জাফর, শেখ শহিদুল আলম ও এরশাদুল ইসলামেরও স্বাক্ষাৎকার শেষ হয়েছে। এখন সরকারের নিয়োগ বিধির আলোকে অস্থায়ী স্বাস্থ্য সহকারীদের মধ্যে কেবলমাত্র যোগ্যতা সম্পন্নদেরকে স্বাস্থ্য সহকারী পদে স্থায়ী করণ করার কথা।

তবে স্বাস্থ্য সহকারীর গ্রেডেশন তালিকায় থাকা উল্লেখিত ছয় অস্থায়ী স্বাস্থ্য সহকারীকে স্বাস্থ্য পরিদর্শক পদে নিয়োগ পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে টাকা তুলছেন স্বাস্থ্য বিভাগের দুই কর্মকর্তা-কর্মচারি। একইভাবে স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য পদের অস্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারিদের পছন্দমতো পদে চাকরি স্থায়ী করার জন্য টাকা তোলা হচ্ছে বলেও সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

এই বিষয়ে জানতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী শেখ মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলামের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করেও কোনো বক্তব্য মিলেনি।

Facebook Comments Box
এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৬ প্রথম চট্টগ্রাম। @ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park