1. admin@prothomctg.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৫৬ অপরাহ্ন

এই লজ্জা কার

স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৭ জুলাই, ২০২৩
  • ৫৫ বার পঠিত

*কী বলতে চেয়েছিলেন তামিম * কীসের ভয়ে কণ্ঠ থেমে গেল * অনেক কথাই চাপা রেখে দিলেন

কথা বলতে গিয়ে বারবার কাঁদছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল খান। দেশের জন্য যিনি জীবন বাজি রেখে ভাঙা হাত নিয়ে ক্রিকেট মাঠে লড়াই করেছেন, দেশের জন্য মান বয়ে এনেছেন। সেই ক্রিকেটারকের কেন কাঁদতে হলো দেশের মানুষের সামনে। নিশ্চয়ই তামিম কোনো রাজনৈতিক বিষয়ে আক্ষেপ করেননি। নিশ্চয়ই তামিম তার পারিবারিক বিষয় নিয়ে আক্ষেপ করেননি। স্বাভাবিকভাবেই ধরেই নেওয়া যায় ক্রিকেটার তামিম ক্রিকেট বোর্ড সংক্রান্ত বিষয়েই মুখ খুলতে গিয়েও চেপে গেছেন। বুকের ভেতরে চাপা থাকা কথাগুলো বেরিয়ে আসার পথে নিজেই নিজেকে থামিয়ে দিয়েছেন তামিম। সংবাদ সম্মেলনে সব কথা বলে ফেললে ক্ষতি হবে ক্রিকেটের নাকি নিজের, তা নিয়ে দ্বিতীয় বার ভাবতে চান তামিম।

অনেক দিন ধরেই তামিমের সঙ্গে ঝামেলা চলছিল। দলের হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে ঝামেলা। এই কোচ কোনো না কোনো ভাবে তামিমকে হেনস্তা করে আসছিলেন। বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও ছিলেন সেই দলেই।

চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচের আগে তামিমের শতভাগ ফিটনেস নিয়ে কথা চলাচালি হয় কোচ এবং বিসিবির সভাপতির মধ্যে। কারণ তামিম নিজেই বলেছিলেন তিনি নিজেকে ফিট মনে করছেন না। তবুও প্রথম ম্যাচ খেলবেন। প্রথম ম্যাচেই বুঝা যাবে তার ইনজুরির অবস্থানটা কোথায়। তামিমের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিসিবি সভাপতিও সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছিলেন তামিমের এমন কথায় নাকি পাপনের মেজাজটা খারাপ হয়ে গেছে। হাথুরুসিংহে নাকি পাপনকে ফোন করে চিল্লাচিল্লি করেছেন। পাপন বলছিলেন তামিমের অপেশাদার বক্তব্য। সিরিজের এক দিন আগে তামিম বলবে সে ফিট না। এটা কি পাড়া মহল্লার খেলা। এটা আন্তর্জাতিক ম্যাচ।’ পরদিনই আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ হেরে যায় বাংলাদেশ। খেলার পরদিনই তামিম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিলেন।

তামিমের বক্তব্যে পরিষ্কার বোর্ড হতে এমন কিছু বলা হয়েছে যে কারণে তামিম বাধ্য হয়ে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন। তামিম যে অবসরের ঘোষণা দেবেন সেটাও বোর্ডেরই জানার কথা। তা না হলে তামিম যেসব জায়গায় সংবাদ সম্মেলন করতে চেয়েও কেন অনুমতি পাননি।

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক অবসর নেবেন এভাবে, এটা কোন দেশের রেওয়াজ। টিম হোটেলে থাকা অবস্থায় তামিম কাঁদতে কাঁদতে বেরিয়ে যাবেন এই লজ্জা কার। তামিমের অবদান কেউ অস্বীকার করবে না। তাহলে বিসিবি কেন অস্বীকার করছে। তামিম বলছেন, ‘আমি অনেক কিছু বলতে চাই। আমি আশা করি এই পরিস্থিতি আপনারা (সাংবাদিক) সম্মানের চোখে দেখবেন। আমি এত বছর যখন খেলেছি। আমি বুঝি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলাটা এত সহজ না।’ তাই যদি হয়, তামিম ক্রিকেট ছেড়ে দেবেন তাহলে এমন বাজে পরিস্থিতিতে কেন।

Facebook Comments Box
এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০১৬ প্রথম চট্টগ্রাম। @ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park